1. a@banglarkobi.com : admin1 : BULBUL HOSEN
  2. bulbulshake36@gmail.com : BULBUL HOSEN : BULBUL HOSEN
  3. salammaster1975@gmail.com : কবি এম.এ. সালাম : কবি এম.এ. সালাম
  4. bhandarylaxman@gmail.com : লক্ষ্মণ ভাণ্ডারী : লক্ষ্মণ ভাণ্ডারী
  5. lokmanrakib@gmail.com : Lion Lokman Rakib : Lion Lokman Rakib
  6. tm.nazmul@gmail.com : এম নাজমুল হাসান : এম নাজমুল হাসান
সত্যি তোমাকে ভালবাসি মিথিলা - বাংলার কবি|banglarkobi বাংলার কবি ও কবিতার আসর | Banglar Kobi & Kobitar Asor
BULBUL HOSEN
BULBUL HOSEN
  • ৫ days আগে
  • ১৩
সত্যি তোমাকে ভালবাসি মিথিলা

মিথিলাকে কেন জানি। আজ হাসি খুশি মনে হচ্ছে। আমি ভাবলাম এত খুশি কখনো মিথিলাকে দেখিনি। আমি কিছু না বলেই কাপটা ছেড়ে ওয়াশ রুমে চলে গেলাম। আসতেই গামছাটা এগিয়ে দিল । কেন জানি মিথিলাকে আজ সুন্দর মনে হচ্ছে। সত্যি মিথিলা আমাকে এতো ভালবাসে যে কোন স্ত্রী তার স্বামীকে এতটা ভালোবাসে আমার জানা নেই। সত্যিই আমি ধন্য মিথিলার মত বউ পেয়ে ।মিথিলা আমার হাতে চিমটি কেটে বলল ।কি ব্যাপার কি ভাবতেছেন। অনেকক্ষণ ধরে আপনাকে ডাকতেছি।খাবার রেডি আসেন খেয়ে যান । খাবার খেতে খেতে মিথিলা বলল।আপনাকে কিছু বলব শুনবেন। আমরা তো অনেকদিন হল। কোন জায়গায় ঘুরতে যাই না। চলেন না কোথাও ঘুরে আসি। আমিও মনে মনে ভাবতে ছিলাম । মিথিলাকে এই কথাটাই বলবো।মিথিলাকে আমি বললাম তোমার কি পছন্দ করা কোন জায়গা আছে । আপনি যে জায়গায় নিয়ে যাবেন ।ওটাই আমার পছন্দের জায়গা। মিথিলার কথা শুনে আমি খুশি হয়ে গেলাম। মিথিলাকে বললাম তুমি কেন এতটা আমাকে ভালোবাসো ।আপনি ছাড়া কে আছে আমার ।আপনি স্বয়নে স্বপনে নিঃশ্বাসে সব জায়গায় আছেন ।এর ভালোবাসা দেখে মাঝে মাঝে আমি নিজেই অবাক হয়ে যাই। আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করে বলি ।হে আল্লাহ মিথিলাকে তুমি হায়াত দারাজ করুক। মিথিলাকে বললাম চলো সিলেট ঘুরে আসি। মিথিলা রাজি হয়ে গেল।

পরদিন সকালে সবাইকে বলে । সিলেটের উদ্দেশ্যে রওনা দিলাম।আমি আর মিথিলা বাসে টিকিট কাটলাম। সন্ধ্যার দিকে গাড়িতে উঠলাম । বাসে উঠেই মিথিলার গল্প শুরু করে দিলো। গল্প করতে করতে রাতের খাবার সময় হয়ে গেল। বাস এক হোটেলের সামনে গিয়ে দাঁড়ালো। মিথিলা বলল আপনার পছন্দের ছোট মাছের তরকারি দিয়ে ভাত খাব। হোটেলে খাবার সেরে আমি আর মিথিলা আবার গাড়িতে উঠে পড়লাম। একপর্যায়ে মিথিলা আমার কাঁধে মাথা রেখে ঘুমিয়ে পরল।

আর আমি আস্তে করে মিথিলার মাথায় হাত বুলাতে থাকি ।আর আমি ভাবতে থাকি মিথিলাকে পেয়ে আমি কত সুখে আছি। এদিকে ভোর হয়ে আসতেছে। আমরাও পৌঁছে গেছি আমাদের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে।এদিকে মিথিলা ঘুম থেকে উঠে কান্না শুরু করে দিয়েছে । আমি বললাম কি ব্যাপার তুমি কান্নাকাটি করতেছো কেন। মিথিলা বলল না জানি আপনার কত কষ্ট হয়েছে। আপনার কাঁধে মাথা রেখে ঘুমিয়ে ছিলাম। আমাকে মাফ করে দেন । মিথিলাকে জড়িয়ে ধরে কান্না থামানোর চেষ্টা করলাম। বললাম আমার কিছু হয়নি । আমি তো ভালোই আছি।আমি মিথিলাকে নিয়ে গাড়ি থেকে নেমে পড়লাম এবং বিভিন্ন পরিবেশ দেখিয়ে তার কান্না থামানোর চেষ্টা করলাম। সকালবেলাতে বর্ডারের কাছে গিয়ে । আমি আর মিথিলার ছবি উঠালাম। এরপর আমরা ঝর্ণার পানিতে গোসল করলাম।এত সুন্দর স্বচ্ছ পানি। দেখে মনটা ভরে গেল।

খুশিতে মিথিলা আমাকে জড়িয়ে ধরে বলল। এই পৃথিবীতে আমার চেয়ে সুখী আর কেউ নেই।বর্ডারের কাছে উঁচু-নিচু অনেক টিলা। দেখে মিথিলা খুশি হয়ে গেছে। বর্ডারে ইন্ডিয়ান শাড়ি পাওয়া যায় । মিথিলা বলল আমি একটি ইন্ডিয়ান শাড়ি নিবো। আমি বললাম তুমি দেখো। তোমার যেটা পছন্দ হয় সেটা নাও। শাড়ি কেনার পর দুজনে দুপুরে খাওয়া-দাওয়া শেষ করলাম । মিথিলা সবসময় আমার খেয়াল রাখত । আমার সব প্রয়োজনীয় জিনিস শে সাজিয়ে রাখত। সত্যি মিথিলা তোমাকে প্রচন্ড ভালোবাসি । এ দিকে দুপুর গড়িয় বিকাল হতে হতে চলেছে। মিথিলা আমাকে একটি চাদর কিনে দেয়। আপনি জানেন এটা টাকা আমি কেমনে জোগাড় করেছি। আমি বললাম না তো জানিনা। আপনি যে আমাকে হাত খরচের জন্য টাকা দিতেন। সেই টাকা থেকে কিছু বাঁচিয়েছিলাম । আজ শুধু আমার বারবার বলতে ইচ্ছে করতেছে সত্যি তোমাকে ভালোবাসি।

দয়া করে শেয়ার করুন স্যোসেল মিডিয়ায়

Comments are closed.

কবি পরিচিতি
BULBUL HOSEN
BULBUL HOSEN
আমি শৈশব থেকে বাংলাদেশের ঢাকা বিভাগের টাংগাইল জেলার কালিহাতী থানার ঘুনিপাড়া গ্রামে সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে বেড়ে উঠি। পিতার নামঃ- মোঃ ফ্জলুল হক। মাতাঃ- মোসাঃ মনোয়ারা বেগম। Mail:-bulbulshake36@gmail.com